বাজেটে 5G ঘোষণা কি আসলে সরকার-জিও সখ্যের প্রমাণ?

অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন বাজেটে 5G  পরিষেবা নিয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করলেন। ২০২২-২০২৩ এর মধ্যে ভারতে পরিবর্ধিত ভাবে ছড়িয়ে পড়বে ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক। রিপোর্ট অনুযায়ী দিল্লি, মুম্বই, কলকাতা, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, হায়দ্রাবাদ ও আমেদাবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলিতে শুরু হবে এই পরিষেবা। এয়ারটেল, রিলায়েন্স জিও, ভোডাফোন ইত্যাদি দেশের বৃহত্তর টেলিকম কোম্পানিগুলি ফাইভ জি নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা করছে। সরকার বিভিন্ন টেলি সংস্থাগুলির সঙ্গে এবং অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে স্পেকট্রাম নিলামের বিষয়ে। এর মাধ্যমেই ফাইভ জির পরিষেবা বাজারে আসবে।

একবিংশ শতকের প্রথম দশকে আমরা দেখেছি থ্রিজির রমরমা। গত দশকে ফোর জি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ২০১৯ সালে আমেরিকায় প্রথম ফাইভ জি বাজারে আসে। প্রাথমিক পরীক্ষা নিরীক্ষার স্তর পেরিয়ে এ বছর তা চালু হতে চলেছে ভারতেও। ফোর জি পরিষেবার সঙ্গে কী পার্থক্য এই ফাইভ জির? কীই বা নতুনত্ব এতে? আসুন, এক ঝলক দেখে নিই–

 

স্পিড

ফাইভ জি পরিসেবার সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল ডেটা ট্রান্সফারের স্পিড। ফোরজি যেখানে সর্বোচ্চ ১০০ এমবিপিএসের স্পিড দিতে পারে বলা হয়, সেখানে বাস্তবে তার সর্বোচ্চ স্পিড ৩৫ এমবিপিএস। ফাইভজি এর থেকে ১০০ গুণ বেশি শক্তিশালী। ২০ জিবিপিএস স্পিডের দাবি করা হলেও, বাস্তবে এতে ৫০ এমবিপিএস থেকে ৩ জিবিপিএস পর্যন্ত নেটের স্পিড উপভোগ করা সম্ভব।

ল্যাটেন্সি

একটি নেটওয়ার্কের দু'টি বিন্দুর মধ্যে তথ্যের একটি প্যাকেট পাঠাতে যতটা সময় লাগে, তাকেই ল্যাটেন্সি বলা হয়। মনে রাখাতে হবে, এর সঙ্গে নেটের স্পিডের কোনও সম্বন্ধ নেই। ফোরজি-তে ল্যাটেন্সির পরিমাণ ৫০ মিলি সেকেণ্ড, সেখানে ফাইভজির ল্যাটেন্সি ১ মিলি সেকণ্ড।

এছাড়া নেটওয়ার্ক কভারেজ ও ব্যাণ্ড-উইথেও বড়সড় পার্থক্য রয়েছে দুটি নেটওয়ার্কের।

 

জিও ও ফাইভ জি-র পোয়াবারো

যদিও বাজেটের তথ্য অনুযায়ী ভারতের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ টেলিকম কোম্পানিগুলি এই নেটওয়ার্ক নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা করছে, তবে গত মাসেই জিওর এক সিনিয়র অফিসিয়াল জানান ভারতের ১০০০টিরও উপর শহরে ফাইভজির পরিষেবা এবং এর ফাইবার পরিষেবার কাজও শেষ করে ফেলেছে জিও। ট্রায়াল স্তরে হেলথকেয়ার ও ভারী শিল্পের ক্ষেত্রে এই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করছে তারা। রিলায়েন্স জিওর ইনফোকম প্রেসিডেন্ট জানান, বিভিন্ন শহরে ফাইভজি পাইলট চালু করার বন্দোবস্ত হয়েছে, এবং ফাইভজি ব্যবহার করে থ্রিডি ম্যাপ এবং রে-ট্রেসিং প্রযুক্তির কাজও চলছে।

আশা করা হচ্ছে আগামী অর্থনৈতিক বছরের প্রথম তিনমাসের মধ্যে ফাইভজি স্পেকট্রামের নিলাম হবে। জিও জানিয়েছে ডিসেম্বরের মধ্যেই তারা তিন চতুর্থাংশ কাজ শেষ করেছে। এ বছর তাদের গ্রাহক বেড়েছে ১.০২ কোটি। তাতে ওয়াইওওয়াই দাঁড়িয়েছে ৪২.১ কোটি।

রিপোর্ট অনুসারে, জিওর এআরপিইউ না বাড়লেও বেড়েছে গ্রাহক প্রতি আয়। ৮.৪% থেকে তা ১৫১.৬ টাকা পর্যন্ত তা বেড়েছিল। এর কারণ মূলত অন্যান্য অপারেটরকে আই ইউ সি চার্জ দিতে হতো জিওকে তাদের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করার জন্য। পয়লা জানুয়ারি ২০২১ থেকে এই আইইউসি চার্জ শূন্য করে দেওয়া হয়। ২০২১এর ডিসেম্বরে থার্ড কোয়ার্টার শেষ হওয়ার সময় দেখা যায় সংস্থাটির মোট লাভ ৮.৮% বেড়েছে। অর্থাৎ ৩৭৯৫ কোটি টাকা। এখন প্রশ্ন এই আই ইউ সি মুক্ত বাজারে জিও-র লাভ বাড়বে কতখানি? বিশেষত নিলামের বছর খানেক আগেই যখন সমস্ত প্রস্তুতি সেরে রেখেছে জিও। অন্যান্য টেলিকম কোম্পানির থেকে কীভাবে এতটা এগিয়ে তারা? বাজেটের অগ্রিম কোনও খবর কি ছিল তার কাছেও? নাকি ইচ্ছাকৃত ভাবেই ফাইভ-জি স্পেকট্রামের নিলামে জিওকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার  ব্যবস্থা করা হল?  উঠছে এইসব প্রশ্নও।

খুব সাম্প্রতিক খবর অনুসারে জিওফোনের ফাইভজি ভার্সন লঞ্ছ করতে যাচ্ছে রিলায়েন্স। গতবছর জিওফোন লঞ্চ করার সময়ে এই পরিকল্পনার কথা শোনা গিয়েছিল কানাঘুষোয়। শোনা যাচ্ছে নানা বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন নানান মডেলের স্মার্টফোন নিয়ে আসছে বাজারে তারা। অ্যান্ড্রয়েড সেন্ট্রালের রিপোর্ট অনুযায়ী এই স্মার্টফোনগুলির দাম ৯০০০ থেকে ১২০০০ টাকার মধ্যেই থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে। ফলত ব্যাপক সংখ্যাক জনগণের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে আসতে চলেছে ফাইভজি। বলা বাহুল্য, এখনও অন্যান্য কোম্পানির ফাইভজি সেট গুলির দাম খুব একটা কম নয়। কাজেই সেখানেও লাভ করার প্রচুর সম্ভাবনা থাকছে জিওর। 

অন্য দিকে ব্যাঙ্কিং সেক্টরে এই 5G নেটওয়ার্ক বিশেষ ভূমিকা পালন করবে বলে জানিয়েছেন ভ্যালুফার্স্টের সি ই ও বিশ্বদীপ বজাজ। তিনি আরো বলেন, “ডেটা প্রোসেসিং, ট্রানজাকশনের ধরন খতিয়ে দেখা, ট্রানজাকশন অ্যামাউন্ট কনফার্ম করা এবং ফাণ্ড উপলব্ধ কিনা দেখা, অনেকগুলি ডেটা ইনট্যান্স একসঙ্গে খেয়াল রাখা, গ্রাহকের জিওলোকেশন এবং মার্চেন্ট আই ডি একসঙ্গে জোড়া, ফ্রড নির্দিষ্ট করতে যাতে ভুল না হয় খেয়াল রাখা–ইত্যাদির দ্বারা গ্রাহক ও ব্যাঙ্কের নিরাপত্তা বজায় রাখার কাজ করবে এই নেটওয়ার্ক।”

স্টেপসেটগো এর সি ই ও শিবজিত ঘাটগে জানান, ডেটার স্পিড সংক্রান্ত নানা প্রযুক্তিগত সমস্যার সমাধান করবে ফাইভজি। দেশের স্বাস্থ্যসম্মৃদ্ধির অন্যতম মুখ হবে এই নেটওয়ার্কটি। আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স অ্যাণ্ড রোবোটিকস্‌ টেকনোলজি পার্কের সি ই ও এবিষয়ে নেটোয়ার্কটির গুরুত্বের কথা জানিয়েছেন। এমনকী গঞ্জে গ্রামে পর্যন্ত ছড়িয়ে দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে এই পরিষেবাকে।

এই আবহে রিলায়েন্স জিওর অগ্রিম সাজসজ্জা এবং সেরে রাখা প্রস্তুতি ২০২২ বাজেট ঘোষণার কিঞ্চিৎ সন্দেহর দিকেই ঠেলছে জনতাকে। এতগুলি ক্ষেত্রে এগিয়ে থাকার দরুন হয়তো খুব সহজেই টেণ্ডার পেতে পারে সংস্থাটি। ইচ্ছাকৃতভাবেই তাদের সুবিধা পাইয়ে দেওয়া হল কিনা–সে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

 

তথ্যঋণ–

4G vs. 5G: The key differences between the cellular network generations [WWW Document], n.d. . Business Insider.

Budget 2022: 5G Mobile Services Rollout Within 2022-23, Says Nirmala Sitharaman [WWW Document], n.d.

Budget 2022: 5G will be transformational force for Indian society, key to all-inclusive development, says tech industry, n.d. . The Financial Express.

Jio completes 5G coverage plans for top 1,000 cities in country, 2022. . The Times of India.

JioPhone 5G Specifications Tipped to Include Dual Rear Cameras, 20:9 Display [WWW Document], n.d. . NDTV Gadgets 360.

 

More Articles

;