কী ভাবে গাড়ি চালালে বাঁচবে পেট্রল? রইল মোক্ষম নিদান

বিশ্ব বাজারে শেষ কয়েক বছরে যেভাবে পেট্রলের দাম ক্রমশ বেড়েছে তাতে মাথায় হাত পড়েছে সকলেরই। পেট্রোলের দামের বিচারে হংকং বিশ্বে এক নম্বর। সেখানে প্রতি লিটার পেট্রোলের দাম ৪ ডলারের কাছাকাছি (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৩০০ টাকা)। তবে ভারতও পিছিয়ে নেই। এই মুহুর্তে প্রতিদিনই পেট্রলের দাম সেঞ্চুরি হাঁকাচ্ছে। ফলস্বরূপ শখ করে কেনা গাড়িটি পড়ে রয়েছে গ্যারেজেই। গাড়ি নিয়ে বেরোলেই পকেটে ছ্যাঁকা লাগছে উচ্চমধ্যবিত্তদের।

চলতি মাসের শেষ সাতদিনের প্রতিদিনই পেট্রলের দাম একশো পেরিয়েছে। গতকাল দিল্লিতে প্রতি লিটার পেট্রলের দাম ছিল ১০৫.৪১ টাকা। মুম্বইবাসীকে প্রতি লিটার পেট্রল বাবদ গতকাল দিতে হয়েছে ১২০.৫১ টাকা। কলকাতায় পেট্রলের দাম ছিল ১১৫.১২ টাকা। তাই মাত্রাতিরিক্ত মূল্যবৃদ্ধির সাথে লড়তে হলে নতুন উপায় খুঁজে বের করতে হবে। শিখতে হবে কী উপায়ে গাড়ি চালালে সাশ্রয় করা যাবে পেট্রল। অর্থাৎ সাপও মরবে কিন্তু লাঠিও ভাঙবে না। জেনে নিন কোন কোন উপায়ে পেট্রল বাঁচানো সম্ভব --

গাড়ির টায়ার পরীক্ষা করুন


অনেকদিন হল গাড়ির টায়ারের প্রতি একবার নজরই যায়নি আপনার! যদি এমন হয় থাকে তবে সময় এসেছে গাড়ির টায়ারগুলি ঠিক করে ফেলার।প্রয়োজনে পর্যাপ্ত পরিমাণে হাওয়া দিয়ে নিন টায়ারগুলিতে। তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন টায়ারে অতিরিক্ত হাওয়া না হয়ে যায়।
টায়ারই গাড়ির একমাত্র অংশ যা গাড়িকে মাটির সংস্পর্শে রাখে এবং গাড়ির ইঞ্জিনের বেশিরভাগ শক্তি চলন্ত চাকার বাধা দূর করতে ব্যয় হয়। এখন টায়ারের হাওয়া কম থাকলে ইঞ্জিনকে অতিরিক্ত কাজ করতে হয়। যার ফলে অতিরিক্ত পেট্রল খরচ হয়। তাই প্রতি সপ্তাহে টায়ার ভালোভাবে পরীক্ষা করে দেখে নিন।

গাড়িতে এয়ার কন্ডিশনারের ব্যবহার কম করুন

আপনি কি গরম থেকে বাঁচতে গাড়িতে উঠেই এয়ার কন্ডিশনার চালিয়ে দেন ? তাহলে আজ থেকেই বন্ধ করুন এমনটা করা। এসি একটি গাড়ির জ্বালানির খরচ ২০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়িয়ে দিতে পারে। তাই চেষ্টা করুন যতটা সম্ভব কাঁচ নামিয়ে বাইরের সতেজ হাওয়া গায়ে লাগাতে।তবে যদি একান্তই এসি ব্যবহার করতে চান সেক্ষেত্রে রি - সার্কুলেট অপশনটি বিকল্প হতে পারে এবং এক্ষেত্রে জ্বালানির খরচও খুব সামান্য।

গাড়ির ওজন হ্রাস

গাড়িতে অতিরিক্ত জিনিস বহন করা আজই বন্ধ করুন এতে পেট্রোল খরচ অনেকখানি কমবে। গাড়ির ওজন যত কম হবে ততই কম জ্বালানি খরচ হবে। একটি মাঝারি সাইজের গাড়িতে প্রতি ২৫ কেজি ওজন বৃদ্ধিতে এক শতাংশ করে অতিরিক্ত পেট্রল খরচ হয়।

একই গতি বজায় রাখুন

বারবার গাড়ির গতি বাড়লে বা কমলে বেশি পরিমাণে পেট্রল খরচ হয়। পরীক্ষামূলকভাবে দেখা গেছে যে ঘনঘন গাড়ির গতি পরিবর্তনের কারণে প্রতি ১৮ সেকেন্ডে ২০ শতাংশ পর্যন্ত জ্বালানির খরচও বেড়ে যায়।তাই চেষ্টা করুন যতটা সম্ভব একই গতিতে গাড়ি চালাতে।

আরও পড়ুন-খাদ্যের অভাবে লুঠ করতে হচ্ছে মানুষকে, কেন এই অবস্থা হল চিনের?

উচ্চ গতি এড়িয়ে চলুন

গাড়ি মাঝারি গতিতে রেখে পেট্রলের খরচ কম করুন। দেখা গেছে গাড়ির গতি ৫০ থেকে ৮০ কিলোমিটার মধ্যে রেখে সবচেয়ে বেশি জ্বালানি সাশ্রয় করা সম্ভব। এই গতির ওপরে উঠলেই পেট্রল খরচ বাড়তে থাকে।

ট্র্যাফিকে দাঁড়িয়ে গাড়ি বন্ধ করুন

এক মিনিটেরও বেশি সময় ট্র্যাফিকে দাঁড়িয়ে থাকলে অবশ্যই গাড়ি বন্ধ করে দিন।একটি ৩ লিটারের ইঞ্জিন প্রতি ১০ মিনিট থেমে থাকার জন্য ৩০০ মিলিলিটার ( এক কাপের বেশি) জ্বালানির প্রয়োজন হয়। তাই এক্ষেত্রে ইঞ্জিন বন্ধ করে দেওয়াই শ্রেয়।

দূরের ট্রিপ প্ল্যান করতে পারেন

অনেকগুলি জায়গায় ঘুরতে যাওয়ার বদলে একটু দূরের একক ট্রিপ প্ল্যান করতে পারেন। এক্ষেত্রে জ্বালানি কম খরচ হবে। অনেকগুলি জায়গায় একসাথে ঘুরতে গেলে গাড়ির পার্কিংয়ের জন্য এমন জায়গা বেছে নিন যেখানে গাড়ি রেখে হেঁটেই ঘুরতে পারবেন সব জায়গাগুলি।

More Articles

;