কেমন থাকবেন তা ঠিক করে দেবে বসার ঘরই, বাস্তুটিপস মেনে সাজান এভাবে

লিভিং রুম বা বসার ঘর হল আপনার বাড়ির এমন একটা জায়গা যেখানে আপনি সবথেকে বেশি সময় কাটান।  বাড়িতে অতিথি এলে আড্ডা দেওয়াও সাধারণত লিভিং রুমেই হয়। বাস্তুশাস্ত্র মতেও আপনার বসার ঘর বা লিভিং রুমের ওপর পরিবারের সদস্যদের সুস্বাস্থ্য, অর্থ ,সুখ স্বাচ্ছন্দ্য নির্ভর করে। তাই বাস্তু মেনেই বসার ঘরকে আকর্ষণীয় করে তুলুন। যে জিনিসগুলি মেনে মাথায় রাখবেন -

সদর দরজা

১.বাড়ির সদর দরজার সবচেয়ে অনুকূল অবস্থান হল উত্তর, পূর্ব এবং উত্তর-পূর্ব।

২.প্রবেশদ্বারটি ভালভাবে আলোকিত হওয়া উচিত।

৩.দরজার কাছে জুতার র‌্যাক রাখা এড়িয়ে চলুন।

লিভিং রুমের দিকনির্দেশ

১.বাস্তু অনুসারে, বসার ঘরটি উত্তর, পূর্ব, উত্তর-পূর্ব বা উত্তর-পশ্চিম দিকে মুখ করা উচিত।

২.যদি ডাইনিং এরিয়া লিভিং রুমের সাথে হয়ে থাকে, তবে এটি বসার ঘরের পূর্ব বা দক্ষিণ-পূর্বে হওয়া উচিত এবং রান্নাঘরের কাছাকাছি হওয়া উচিত।

৩.পুজোর ঘরটি বসার ঘরের উত্তর-পূর্ব দিকে থাকা উচিত।

আসবাবপত্রের আকার

১.বর্গাকার বা আয়তক্ষেত্রাকার আসবাবপত্র বেছে নিন এবং বৃত্তাকার বা বিজোড় আকার এড়িয়ে চলুন। 

২.সোফার মতো ভারী আসবাবপত্র বসার ঘরের পশ্চিম বা দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে রাখতে হবে।অথবা

উত্তর বা পূর্ব দেয়ালের বিপরীতে সোফা সাজান।

৩. বসার ঘরের দক্ষিণ-পূর্ব দিকে টিভি ইউনিট ইনস্টল করুন।

বসার ঘরের রঙ 

বাস্তু অনুসারে, রঙ বিভিন্ন ধরণের শক্তি আকর্ষণ করে। গাঢ় রং ব্যবহার করা এড়িয়ে চলুন । পরিবর্তে সাদা, ক্রিম এবং বেইজ মত হালকা রং বেছে নিন। বসার ঘরের জন্য আপনি নীল, সবুজ বা উষ্ণ হলুদের মতো রঙগুলিও করতে পারেন।

 ফিরোজা, গোলাপী বা সোনালী বর্ণের কুশন এবং আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্র বেছে নিয়ে বসার ঘরের সাজসজ্জাকে আকর্ষণীয় করে তুলুন।

কালো এবং গাঢ় লালের মতো রং ব্যবহার করা এড়িয়ে চলুন কারণ, বাস্তু অনুসারে, এই রংগুলির নেতিবাচক শক্তি শোষণ করার প্রবণতা রয়েছে।

করণীয়

১.লিভিং রুম সবসময় পরিষ্কার রাখুন। এদিক সেদিক জিনিসপত্র যেন ছড়িয়ে না থাকে তা নিশ্চিত করুন। বসার ঘর থেকে অপ্রয়োজনীয় আসবাবপত্র এবং অপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সরিয়ে ফেলুন।

২.শোক বা বিষণ্ণতার কোনো ছবি বা আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্র দিয়ে কখনই বসার ঘর সাজবেন না।

৩.ভাঙা শোপিস, বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি যা কাজ করে না, ভাঙা আয়না, ফাটা কাঁচ ইত্যাদি সরিয়ে ফেলুন কারণ বাস্তু অনুসারে, তাদের নেতিবাচক শক্তি এবং দুর্ভাগ্যের সূচক।

৪. প্রকৃতির সৌন্দর্য প্রদর্শন করে এমন কোনো ছবি রাখতে পারেন এবং বসার ঘরে শুকনো ফুল, বনসাই বা ক্যাকটাস ব্যবহার করা এড়িয়ে চলুন। সতেজ ফুলগুলি শুকিয়ে যাওয়ার আগেই তা বসার ঘর থেকে সরিয়ে ফেলুন।সতেজ ফুলগুলি ইতিবাচক শক্তিকে আকর্ষণ করে ।

৫. মানি প্ল্যান্ট, স্পাইডার প্ল্যান্ট, অ্যারিকা পাম, স্নেক প্ল্যান্ট এবং পিস লিলির মতো বায়ু-শুদ্ধকারী উদ্ভিদ দিয়ে আপনার বসার ঘর সাজিয়ে রাখতে পারেন।

৬.বসার ঘরের উত্তর, পূর্ব বা উত্তর-পূর্ব দিকে একটি ফিশ অ্যাকোয়ারিয়াম স্থাপন করে শান্তিপূর্ণ এবং আরামদায়ক পরিবেশ আনুন। উত্তর দিক করে একটি জলের ফোয়ারা রাখতে পারেন।

More Articles

;