মোটা ইএমআই দিয়ে কিনছেন, জানেন অ্যাপেলের iPhone 12 কতখানি বিপজ্জনক?

Apple iphone 12 Radiation: দুই সপ্তাহ আগে কেনা হলে কোনও ভাবেই এই ফোন ফেরত বা পাল্টে দেওয়া যাবে না।

অ্যাপেল পকেটে থাকা মানে আভিজাত্যের ‘জাতে’ উঠে যাওয়া! ধার দেনা করে, বড় অঙ্কের ইএমআই দিয়ে সাম্প্রতিকতম অ্যাপেল ফোনটি কিনতে তাই বিশেষ ভাবনা চিন্তা করেন না এক বড় গোষ্ঠীর সদস্যরা। তবে এই অ্যাপেল আপনার আভিজাত্য বাড়াতে গিয়ে বিপদ ডেকে আনছে না তো? সম্প্রতি এক বিস্ফোরক তথ্য প্রকাশ্যে এসেছে। Apple Inc সংস্থাটি জানে, তাদের আদরের এই প্রোডাক্ট আসলে মারাত্মক বিপজ্জনক। আর সবটা জেনেও নিজের কর্মীদের মুখে কুলুপ আঁটার নির্দেশ দিয়েছে অ্যাপেল সংস্থা। অ্যাপেলের iPhone 12 ফোনটি অত্যন্ত বিপজ্জনক। এই ফোনটির বিকিরণের মাত্রা নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়েছে। অথচ অ্যাপেল নিজের প্রযুক্তি-সহায়ক কর্মীদের ফ্রান্সে iPhone 12-এর বিকিরণ মাত্রা নিয়ে বিতর্কের বিষয়ে কোনও তথ্য দিতে নিষেধ করেছে।

ব্লুমবার্গ জানাচ্ছে, ফ্রান্স অ্যাপলকে আইফোন ১২ বিক্রি বন্ধ করতে বলেছে। তাদের দাবি, এই ফোনের মডেলটি ইউরোপিয় ইউনিয়নের নির্দিষ্ট মানের চেয়ে বেশি ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক রেডিয়েশন নির্গত করে। কিন্তু গ্রাহকরা যদি এই বিষয়ে প্রশ্ন করেন, কর্মচারীদের বলতে বলা হয়েছে যে তারা এ নিয়ে কিছুই জানেন না।

 

ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুই সপ্তাহ আগে কেনা হলে কোনও ভাবেই এই ফোন ফেরত বা পাল্টে দেওয়া যাবে না। অ্যাপলের স্বাভাবিক 'রিটার্ন পলিসি' এটাই, অথচ iPhone 12-এর ক্ষেত্রে ফোন ফেরত বা পালটে না দিতেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কর্মীদের বলা হয়েছে, কোনও গ্রাহক ফোন পাল্টাতে এলে তাদের বলতে হবে, অ্যাপেলের পণ্যগুলি কঠোর নিরাপত্তা পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যায়। ফলে এটি নিরাপদ।

আরও পড়ুন- রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ চিনের একের পর এক মন্ত্রী! হচ্ছেটা কী চিনে?

ফ্রান্সের ডিজিটাল মন্ত্রী বলছেন, আইফোন ১২-এর বিকিরণের মাত্রা ইইউ স্ট্যান্ডার্ডের চেয়ে বেশি। তবে তা বিপদসীমার চেয়ে এখনও বেশ কমই। এই সমস্যাটি সমাধানের জন্য সফটওয়্যার আপডেট করলেই হবে, ফ্রান্স সরকার অ্যাপলের কাছ থেকে দুই সপ্তাহের মধ্যে এই বিতর্ক বিষয়ে উত্তর চেয়েছে। অ্যাপেল জানিয়েছে ফরাসি সরকারের সঙ্গেই কাজ করবে তারা এবং তাঁদের এই iPhone 12 যে নিরাপদ তা প্রমাণ করেই ছাড়বে।

 

শুধু ফ্রান্স নয়, ইউরোপিয় ইউনিয়নের অনেক দেশেই অ্যাপেলের এই ফোন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। ফ্রান্সের পরে বেলজিয়ামও আইফোন ১২-এর সঙ্গে জড়িত স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ঝুঁকি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। সে দেশের জুনিয়র ডিজিটাল মন্ত্রী বলছেন, টেলিকম নিয়ন্ত্রককে এই নির্দিষ্ট মোবাইলটি সম্ভাব্য সমস্যা ও বিপদগুলিকে বিশ্লেষণ করতে বলবেন তিনি।

জার্মানির টেলিকম নিয়ন্ত্রক বলেছে, বিকিরণ সমস্যা পরীক্ষা করবে তারা। ডাচরাও অ্যাপেল কোম্পানির কাছে ব্যাখ্যা চাইবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আইফোন ১২ মডেলটি প্রথম বাজারে আসে ২০২০ সালে। এখন বাজারে iPhone 15 নিয়েই মাতামাতি চলছে।

More Articles