স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত ছবি মিত্তল || পুরুষদেরও হতে পারে এই রোগ?

হ্যারি পটার সিরিজের অভিনেতা ডেম ম্যাগি স্মিথ থেকে আয়ুষ্মান খুরানার জীবনসঙ্গী তাহিরা কাশ্যপ- ব্রেস্ট বা স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত দেশবিদেশের বহু মহিলা তারকা। এবার এই তালিকায় যুক্ত হয়েছে 'বন্দিনী' ও 'নাগিন'-খ্যাত ছবি মিত্তলের নাম। টেলিভিশনের এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী নিজেই একথা জানিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। দীর্ঘ এক ইনস্টাগ্রাম পোস্টে শনিবার তিনি লিখেছেন, 'প্রিয় স্তনযুগল, তোমাদের উদ্দেশ্যেই এই পোস্ট। প্রথমবার তোমাদের আভাস অনুভব করি এক অপরিমেয় আনন্দের মধ্য দিয়ে। কিন্তু তোমাদের গুরুত্ব বুঝতে পারি, আমার দুই সন্তানকে প্রতিপালন করতে গিয়ে। আজ এই দুঃসময়ে যখন তোমাদের মধ্যে একজন ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েছে, তখন সময় এসেছে তোমাদের পাশে থাকার।' এই মর্মস্পর্শী পোস্টটি পড়ার পর থেকে অনুরাগীরা দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন ৪১ বছর বয়সি এই অভিনেত্রীর। যদিও তিনি জানিয়েছেন যে, তিনি খুবই ভাগ্যবতী, কারণ চিকিৎসকেরা একেবারে গোড়াতেই শনাক্ত করেছেন এই রোগ।

বিশ্বজুড়ে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলেছে, ভারতও পিছিয়ে নেই এক্ষেত্রে। ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের অন্ধ্রপ্রদেশ শাখার প্রেসিডেন্ট ও চিকিৎসক সি. শ্রীনিবাস রাজুর কথায়, 'ভারতে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্তের সংখ্যা এবং মৃতের সংখ্যা বিশ্বে সর্বাধিক। প্রায় ১৩.৫ শতাংশ মহিলা এই প্রকার ক্যান্সারে আক্রান্ত।' তিনি আরও বলেন, 'গ্লোবোক্যান নামক একটি সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী প্রায় ১৩.২৫ লক্ষ মহিলা ২০২০ সালে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে প্রায় ৮ লক্ষ ৫১ হাজার ৬৭৮ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। তবে এই সম্পর্কে মানুষের সচেতনতা খুবই কম। তাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় এই ক্যান্সার তৃতীয় বা চতুর্থ পর্যায়ে ধরা পড়ছে। সেক্ষেত্রে বাঁচানো সম্ভব হয় না।' কী কারণে এই প্রকার ক্যান্সার বাসা বাঁধে, লক্ষণগুলি কী এবং কী করণীয়, যাতে কিছুটা হলেও এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব এই ক্যান্সার- চলুন জেনে নিই।

আরও পড়ুন: মেয়েদের শরীরে নিঃশব্দে হানা দিচ্ছে এই রোগ, উপসর্গ চিনে আজই সতর্ক হোন

স্তন ক্যান্সার কী?

চিকিৎসকদের মতে, স্তনের কিছু কোষ অস্বাভাবিক হারে বাড়তে শুরু করলেই মূলত তা ক্যান্সার হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। সুস্থ কোষের তুলনায় আক্রান্ত কোষগুলো দ্রুত বিভাজিত হয়ে স্তনের কোনও জায়গায় পিণ্ড বা লাম্প তৈরি করে এবং শরীরের অন্যান্য অংশেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, প্রথমে দুধ উৎপাদনকারী নালীটি আক্রান্ত হয়েছে ক্যান্সারে। মহিলারা বেশি পরিমাণে এই ক্যান্সারে আক্রান্ত হলেও পুরুষদেরও স্তন ক্যান্সার হতে পারে।

রোগের লক্ষণ

স্তন ক্যান্সারের লক্ষণগুলি হল:

১. স্তন বা বগলের কাছে কোনও মাংসপিণ্ড তৈরি হয় এক্ষেত্রে।ফলে আক্রান্ত স্তনের অংশ মোটা হয়ে যায় বা ফুলে ওঠে।
২. স্তনের ত্বকে জ্বালা বা অস্বস্তি অনুভব হাওয়া
৩. স্তনের চারপাশে ত্বকের রঙ পরিবর্তন হওয়া
৪. স্তনবৃন্ত থেকে তরল পদার্থের নিঃসরণ হওয়া, এমনকী, রক্তও বেরোতে পারে
৫. স্তনের চারপাশে লালচে ভাব

কী কী কারণে স্তন ক্যান্সার হতে পারে?
চিকিৎসকদের মতে, নানা কারণে স্তন ক্যান্সার হতে পারে। তাঁদের মতে, দৈনন্দিন জীবনযাপন এবং খাদ্যাভ্যাস স্তন ক্যান্সারের জন্য অনেকখানি দায়ী। খাদ্যাভ্যাসে সবুজ শাকসবজি, ফলমূলের পরিবর্তে যদি চর্বি বা প্রাণীজ আমিষ বেশি থাকে, তাহলে স্তন ক্যান্সারের প্রবণতা বেড়ে যায়। দীর্ঘদিন প্রসেসড ফুড খেলেও এই রোগ দেখা দিতে পারে। এছাড়া পরিবারে স্তন ক্যান্সারের ইতিহাস থাকলেও অনেকে এই রোগে আক্রান্ত হন। আবার কোনও মহিলার যদি ১২ বছরের আগে ঋতুস্রাব শুরু হয় এবং দেরিতে মেনোপজ হয়, তাঁর ক্ষেত্রেও ঝুঁকি থেকে যায়। অতিরিক্ত ওজন এই রোগের অন্যতম কারণ। এছাড়া দিনের পর দিন জন্মনিয়ন্ত্রক পিল, দেরি করে বাচ্চা নেওয়া, হরমোনের ইঞ্জেকশন স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। তবে প্রাথমিক পর্যায়ে এই প্রকার ক্যান্সার শনাক্ত করা গেলে এটি ১০০ শতাংশ নিরাময়যোগ্য।

করণীয়
স্তন ক্যান্সারের বিপদ থেকে বাঁচতে প্রতি মাসেই ভালভাবে স্তন পর্যবেক্ষণ করা প্রয়োজন। ২০ বা তার থেকে বেশি বয়সের মহিলারা মাসিকের দিনগুলিতে নিজেরাই দেখতে পারেন কোনওরকম শক্ত পিণ্ড বা লাম্পের অস্তিত্ব টের পাচ্ছেন কি না স্তন বা তার আশেপাশে।যদি কিছু অনুভব করেন, দেরি না করে অবশ্যই চিকৎসকের পরামর্শ নিন।

চিকিৎসা
ম্যামোগ্রাফি, বায়োপসি বা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী পরীক্ষা করে স্তন ক্যান্সার ধরা পড়লে নানা রকম চিকিৎসা পদ্ধতি অনুসরণ করে এই রোগ সারিয়ে তোলা সম্ভব। সার্জারির মাধ্যমে স্তন থেকে টিউমার বাদ দেওয়ার পাশাপাশি অনেক সময় আক্রান্ত স্তনের সম্পূর্ণ অংশই বাদ দিয়ে দেওয়া হয়। এছাড়া কেমোথেরাপি, রেডিয়োথেরাপি, হরমোন থেরাপি এবং নির্দিষ্ট থেরাপির মাধ্যমে স্তন ক্যান্সারের চিকিৎসা করা হয়।

More Articles

;