ডায়েটে আসলে বাড়ছে ওজন! কোন কোন ডায়েট ফুড আসলে মরণফাঁদ?

বর্তমান যুগে দাঁড়িয়ে পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষেরই মূল লক্ষ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে কম সময়ে নিজেকে ফিট রাখা অথবা স্থূলতাজনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া। এই 'জিরো ফিগার'-র ট্রেন্ডের মাঝে অবশ্য নিজেকে ফিট রাখার সংগ্রাম মোটেও সহজ নয়, বিশেষত, প্রতিদিনের রুটিনে যেভাবে কর্মব্যস্ততার কারণে নিজের জন্য সময় বের করা মুশকিল হয়ে পড়েছে। এর ওপর যদি আপনি একজন খাদ্যরসিক মানুষ হন, তাহলে ওজন কমানোর লক্ষ্যে 'ডায়েট করা' একপ্রকার অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়।

তবে শুধু কি হাঁটাচলা আর ডায়েট করলেই মিলবে চর্বির হাত থেকে মুক্তি? ব্যাপারটা যতটা সহজ ভাবছেন, ততটা সহজ কিন্তু নয়। তাহলে বলে রাখি, বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রীর গায়ে যেসব ডায়েট ফুড-মার্কা স্টিকার লাগানো থাকে, সেগুলোতে কিন্তু চোখ বন্ধ করে বিশ্বাস করা উচিত নয়। কারণ, এখনকার বাজারে ডায়েট খাবারের নামে এমন একাধিক জিনিস বিক্রি করা হয়ে চলেছে, যার উপাদান সম্পর্কে আপনারা হয়তো অবগতই নন! সেই কারণে আগামী সময়ে বাজার থেকে কোনও জিনিস কেনার পূর্বে তার পুষ্টি উপাদান এবং অন্যান্য একাধিক তথ্য সম্পর্কে সঠিকভাবে জেনে নিয়ে তবেই কেনা শ্রেয়।

আসুন জেনে নেওয়া যাক এরকমই কিছু ডায়েট ফুড সম্পর্কে তথ্য, যেগুলো আপনার ওজন কমানো তো দূরের কথা, বরং মুহূর্তের মধ্যে তা বাড়িয়ে তুলতে পারে। ফলে এখনই সাবধান হয়ে যান, নইলে পরবর্তীকালে আফসোস করা ছাড়া আর কোনো উপায় থাকবে না।

আরও পড়ুন: মানসিক চাপ, অভ্যেস… কীভাবে ছাড়বেন ধূমপান?

কম-চর্বিযুক্ত দই
প্রতিটি বাঙালি পরিবারে দই খাওয়ার ঝোঁক অত্যন্ত জনপ্রিয়। মিষ্টি দই থেকে শুরু করে টক দই, খাবারের শেষে কিংবা সন্ধের টিফিনে এটি বেশ পছন্দের খাবার। এরই মধ্যে যাঁরা ওজন কমানোর প্রক্রিয়ায় শামিল হয়েছেন, তাঁদের কাছে অত্যন্ত পছন্দের খাবার হল 'কম-চর্বিযুক্ত' অথবা একদম 'চর্বিহীন' দই। তবে জানেন কি, এগুলো খাওয়ার মাধ্যমে কিন্তু আপনার ওজন অতীতের তুলনায় আরও বেড়ে যেতে পারে। কারণ কী?

এর প্রধান কারণ হলো, এই ধরনের দইয়ের ভেতরে চর্বির বদলে ব্যবহার করা হয়ে থাকে অনেক পরিমাণ চিনি। একটি পরিসংখ্যান দাবি করেছে, দুই থেকে তিন কাপ চর্বিহীন দইয়ে প্রায় ২২ গ্রাম পর্যন্ত শর্করা থাকতে পারে, অর্থাৎ এর মধ্যে প্রায় ১৫ থেকে ২০টির কাছাকাছি চিনির দানা যুক্ত করা হয়। আমেরিকার একটি পত্রিকা দ্বারা এক সমীক্ষা করা হয়, যেখানে দুই শ্রেণির মানুষকে রাখা হয়, যাঁরা বেশি চর্বিযুক্ত খাবার খান এবং যাঁরা কম চর্বিযুক্ত খাবার খান।

পরীক্ষা-শেষে দেখা যায় যে, কম চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়া মানুষের ওজন বেশি চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়া মানুষের তুলনায় বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে!

বোতলের ভেতরে থাকা স্যালাড
প্রসঙ্গ যখন ফিট থাকা কিংবা স্থূলতাজনিত রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার, তখন আমাদের কাছে অন্যতম গ্রহণযোগ্য বিষয় হয়ে দাঁড়ায় স্যালাড। এক্ষেত্রে যদি আপনারা বড় কোনও মল কিংবা সুপারমার্কেট থেকে বোতলজাত স্যালাড কিনতে চান, তবে আপনাদের বহু ক্ষেত্রে চোখে পড়ে 'চর্বিহীন স্যালাড'। তবে আপনারা কি জানেন, এক্ষেত্রেও চর্বির পরিবর্তে ব্যবহার করা হয়ে থাকে বহু পরিমাণ চিনি। আসলে এর মধ্যে মেশানো হয়ে থাকে ফ্রুক্টোজ কর্ন সিরাপ। উল্লেখ্য, এই সিরাপের মধ্যে বহু পরিমাণ শর্করা যুক্ত করা হয়ে থাকে এবং এর মাত্র কিছু শতাংশ গ্রহণ করলেই প্রতিদিন প্রায় ৫ থেকে ১০ গ্রাম পর্যন্ত চিনি আপনার শরীরে যুক্ত হয়ে যায়। স্বভাবতই তা আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর বলে বিবেচিত হয়।

ডায়েট সোডা
আজকালকার দিনে মানুষ সোডার মধ্যেও 'ডায়েট' শব্দটি শুনে থাকেন। বর্তমান যুগে ওজন কমানোর ক্ষেত্রে ক্যালোরিবিহীন এই পানীয় মানুষের অন্যতম পছন্দের জিনিস হয়ে উঠেছে। তবে এটিও আপনার ওজন কমানোর পরিবর্তে বৃদ্ধি করতে পারে। বর্তমানে টেক্সাস ইউনিভার্সিটির স্বাস্থ্য বিভাগ দ্বারা কয়েকজন মানুষের ওপর দীর্ঘ ১০ বছর ধরে একটি পরীক্ষা চালানো হয়; যেখানে তাদের সকলকে ডায়েট সোডা খাওয়ানো হয় এবং পরবর্তীকালে দেখা যায় যে, ডায়েট সোডা পানকারী মানুষের ওজন পূর্বের তুলনায় প্রায় ৭০ শতাংশ বৃদ্ধি পায়।

গমের রুটি
উল্লেখ্য, রুটির মধ্যে কার্বোহাইড্রেট থাকার কারণে অনেকেই এটি এড়িয়ে চলতে পছন্দ করেন অথবা খাঁটি গমের তৈরি প্যাকেট দেখলেই তৎক্ষণাৎ তা কিনে ফেলেন। তবে এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো যে, 'খাঁটি গমের তৈরি' স্টিকার দেওয়া মানে শুধুমাত্র গম দিয়েই যে রুটি তৈরি করা হয়েছে, একথা ভাবা একদম ভুল; এক্ষেত্রে গমের সঙ্গে অন্যান্য দ্রব্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে, যা আপনার জন্য স্বাস্থ্যকর নয়। তাই 'whole grain' গমের তৈরি রুটি খাওয়া বরং অনেক ভালো। এক্ষেত্রে আপনার শরীর সুস্থ থাকার পাশাপাশি ওজনও থাকবে নিয়ন্ত্রণে।

এছাড়াও বর্তমান যুগে দই সংরক্ষণ করে খাওয়া কিংবা প্রোটিন বার খেতেও পছন্দ করে অধিকাংশ মানুষ। তবে এক্ষেত্রে প্রোটিনের সঙ্গে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট যুক্ত করা হয়ে থাকে। এই প্রসঙ্গে এক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ মন্তব্য করেন, "বর্তমানে আমরা পুষ্টিকর খাবার বেছে নেওয়ার থেকেও 'ডায়েট' লেখা খাবারের প্রতি আকর্ষিত হই। তবে এসকল জিনিসপত্রে আসলে বহু পরিমাণ শর্করা মেশানো হয়ে থাকে। বর্তমান যুগে বাজারে গিয়ে জিনিসপত্র কেনার আগে আমাদের সকল দ্রব্যের গুণগত মান এবং উপাদানসমূহ দেখে-শুনে এবং বিবেচনা করে তবেই কেনা উচিত।"

More Articles

;